মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

এক নজরে সিলেট বিভাগ

নামকরণ

সিলেট নামের উৎপত্তি নিয়ে নানা মতবাদ রয়েছে। প্রাচীন গৌড়ের রাজা ‘গুহক’ তার কন্যা শীলাদেবীর নামে একটি হাট স্থাপন করেন। এ কারণে ‘শীলাহাট’ থেকে সিলট বা সিলেট নামের পরিচিতি হতে পারে বলে অনেকে মনে করেন। এছাড়াও অনেকের মতে হিন্দু পুরাণ মতে সতীদেবীর হাড় বা হড্ড উপমহাদেশের ৫১ টি স্থানে পতিত হয়েছিল। সতীর দু’টি হাড় সিলেটেও পড়েছিল। সতীর অপর নাম ‘শ্রী’; তাই ‘শ্রী + হড্ড’ থেকে শ্রীহট্ট নাম হতে পারে।

হযরত শাহজালাল (রঃ) কর্তৃক ‘সিল হট্ যাহ্’ আদেশ থেকে ‘সিল্হট্’ নামের উৎপত্তি বলেও অনেকে মনে করেন। ৬৪০ খ্রিস্টাব্দে চীন দেশীয় বৌদ্ধ পন্ডিত ও পরিব্রাজক হিউয়েন সাং সিলেটকে শি-লি-চা-ত-ল’ বলে উল্লেখ করেছেন। খ্রীষ্টীয় একাদশ শতাব্দীতে মুসলিম পরিব্রাজক মনিষী আল্ বেরুনীর ‘কিতাবুল হিন্দ’ গ্রন্থে সিলেটকে ‘সীলাহেত’ বলে উল্লেখ করা হয়। ইংরেজ আমলে কাগজ-পত্রে প্রথমে ‘Silhet' বলে উল্লেখ থাকলেও উনবিংশ শতাব্দির প্রথম দিকে কাছাড় ইংরেজ অধিকারে আসার পর জেলার সদর স্টেশন ‘Silchar'থেকে পার্থক্য দেখাবার জন্য ‘Sylhet'  বলে উল্লেখ করা হয়। এভাবে আজকের সিলেট নামের গোড়াপত্তন হয়।

সিলেট জেলা ও সিলেট বিভাগ

সিলেট জেলা ১৭৭২ সালের ১৭ মার্চ প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৮৭৪ সাল পর্যন্ত এ জেলা ঢাকা বিভাগের অন্তর্ভূক্ত ছিল। ঐ বছরই সিলেটকে নবসৃষ্ট আসাম প্রদেশের অর্ন্তভূক্ত করা হয়। দেশ ভাগের সময় ১৯৪৭ সালে গণভোটের মাধ্যমে সিলেট জেলা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের অন্তর্ভূক্ত হয়। সিলেট জেলা তখন চট্টগ্রাম বিভাগের আওতাধীন ছিল। ১৯৮৩-৮৪ সালে বৃহত্তর সিলেট জেলাকে ৪টি নতুন জেলায় বিভক্ত করা হয়।

প্রতিষ্ঠাকালে সিলেট জেলাসহ বৃহত্তর সিলেটের অপর তিন জেলা চট্টগ্রাম বিভাগের অন্তর্গত ছিল। ১৯৯৫ সালে বৃহত্তর সিলেটের ৪ টি জেলা (সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ) নিয়ে পৃথক সিলেট বিভাগ যাত্রা শুরু করে। বিভাগের প্রথম কমিশনার ছিলেন জনাব মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান। বর্তমান কমিশনার ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম।

ভৌগোলিক বিবরণ

অবস্থান

সিলেট বিভাগ ২৩°৫৮´উওর অক্ষাংশ থেকে ২৫°১২´উওর অক্ষাংশ এবং ৯০°৫৬´পূর্ব দ্রঘিমাংশ থেকে ৯২° ৩০´পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত। এর উত্তরে ভারতের মেঘালয় রাজ্য, দক্ষিণে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য ও বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, পূর্বে ভারতের আসাম ও ত্রিপুরা রাজ্য, পশ্চিমে নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ জেলা।

আয়তন           

সিলেট বিভাগের মোট আয়তন ১২,৫৫৮ (বার হাজার পাঁচশত আটান্ন) বর্গ কিলোমিটার। এর অন্তর্গত সিলেট জেলার আয়তন ৩,৪৫২বর্গ কিলোমিটার, সুনামগঞ্জ জেলার আয়তন ৩,৬৭০ বর্গ কিলোমিটার, হবিগঞ্জ জেলার আয়তন ২,৬৩৭ বর্গকিলোমিটার, মৌলভীবাজার জেলার আয়তন ২,৭৯৯ বর্গ কিলোমিটার। আয়তনের দিক থেকে এ বিভাগের সর্ববৃহৎ জেলা সুনামগঞ্জ এবং সবচেয়ে ছোট জেলা হবিগঞ্জ।      

ভূপ্রকৃতি          

সিলেট বিভাগের উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণ দিকে উঁচু উঁচু পর্বত শ্রেণীর পাহাড়ী অঞ্চল। মূলত: মেঘালয়, খাসিয়া, জৈন্তিয়া, ত্রিপুরার পাহাড়ের মাঝামাঝি বিস্তৃর্ণ এলাকাটিই হচ্ছে সিলেট বিভাগ বা প্রাচীন শ্রীহট্ট। অভ্যন্তরীন সীমাভূমি বেশির ভাগ সমতল প্রান্তর। স্থানে স্থানে জঙ্গল ও বালুকাময় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টিলা রয়েছে।

বিভাগের অভ্যন্তরে বহু নদী প্রবাহিত। প্রকৃতি কন্যা সিলেট হল পাহাড়, নদী ও হাওর ঘেরা সবুজ শ্যামল প্রাকৃতিক ভূমি। সিলেট বিভাগের অভ্যন্তরে পাহাড়গুলোয় বিস্তৃত চা বাগান।

এক নজরে সিলেট বিভাগ

প্রশাসনিক

1.     সংসদীয় আসন         : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৬টি; সুনামগঞ্জ :০৫টি ; মৌলভীবাজার: ০৪টি; হবিগঞ্জ: ০৪টি)

2.     উপজেলা                 : মোট ৩৯টি (সিলেট: ১৩টি; সুনামগঞ্জ : ১১টি ; মৌলভীবাজার: ০৭টি; হবিগঞ্জ: ০৮টি)

3.     সীমান্তবর্তী উপজেলা  : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৬টি; সুনামগঞ্জ : ০৬টি ; মৌলভীবাজার: ০৫টি; হবিগঞ্জ: ০২টি)

4.     থানা                      : মোট ৪৪ টি (সিলেট: ১৭টি; সুনামগঞ্জ : ১১টি ; মৌলভীবাজার: ০৭টি; হবিগঞ্জ: ০৯টি)

স্থানীয় সরকার

1.      সিটি কর্পোরেশন        : ০১ টি (সিলেট সিটি কর্পোরেশন)

2.      পৌরসভা            : মোট ১৯ টি (সিলেট: ০৪টি; সুনামগঞ্জ : ০৪টি ; মৌলভীবাজার: ০৫টি; হবিগঞ্জ: ০৬টি)

3.     ইউনিয়ন             : মোট ৩৩৬ টি (সিলেট: ১০৫টি; সুনামগঞ্জ : ৮৭টি ; মৌলভীবাজার: ৬৭টি; হবিগঞ্জ: ৭৭টি)

জনসংখ্যা বিষয়ক

1.    মোট জনসংখ্যা       : মোট ৯৮,০৭,০০০ জন (সিলেট: ৩৪,০৪,০০ জন; সুনামগঞ্জ : ২৪,৪৩,০০০জন; মৌলভীবাজার: ১৯,০১,০০০জন; হবিগঞ্জ: ২০,৫৯,০০জন)

2.      গ্রামে জনসংখ্যা      : ৭২,৩৪,৫২৩ জন (৮৭.৫৭%)

3.     শহরে জনসংখ্যা     : ১০,২৭,০৯১ জন (১২.৪৩%)

4.       জনসংখ্যার ঘনত্ব     : প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৭০৩ জন

5.      উপজাতি             : মনিপুরি, খাসিয়া, গারো, পাত্র, লুসাই, হাজং, সাওতাল, ত্রিপুরা, টিপরা

6.      উপজাতি জনসংখ্যা  : ৬৬,৬২৪ জন (সিলেট: ১০,৬২৯জন; সুনামগঞ্জ: ৭,২৮০জন; মৌলভীবাজার:৪৪,৬৩৯ জন; হবিগঞ্জ: ৪,০৭৬জন)

শিক্ষা সংক্রান্ত তথ্য

1.      শিক্ষার হার         : ৪৯.৩২%জন (সিলেট: ৫১.২%; সুনামগঞ্জ : ৫০.০০%; মৌলভীবাজার: ৫১.১%; হবিগঞ্জ: ৪৫.০০%)

2.     শিক্ষা প্রতিষ্ঠান     : মোট প্রতিষ্ঠান ৬,২৪২ টি

ক্রমিক

প্রতিষ্ঠানের নাম

সিলেট

সুনামগঞ্জ

হবিগঞ্জ

মৌলভীবাজার

মোট

০১

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

০২

-

-

-

০২

০২

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

০৫

-

-

-

০৫

০৩

সরকারি মেডিকেল কলেজ

০১

-

-

-

০১

০৪

বেসরকারি মেডিকেল কলেজ

০৫

-

-

-

০৫

সরকারি ভেটেরিনারী কলেজ

০১

-

-

-

০১

০৬

তিবিবয়া কলেজ

০১

-

-

-

০১

০৭

পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

০১

-

-

০১

০২

০৮

ভোকেশনাল ইন্সটিটিউিট

০১

০১

০১

০১

০৪

০৯

ক্যাডেট কলেজ

০১

-

-

-

০১

১০

সরকারী কলেজ

০৫

০৩

০৩

০৩

১৩

১১

বেসরকারি কলেজ

৩৯

১৪

১৯

২১

৯১

১২

আইন কলেজ

০২

-

-

-

০২

১৩

সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ

০১

-

-

-

০১

১৪

সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়

০৬

০৫

০৬

০৩

২০

১৫

বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়

২৭৭

১৪৯

১০০

১৫৫

৬৮১

১৬

জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয়

৩৬

২২

২০

১৮

৯৬

১৭

সরকারি মাদ্রাসা

০১

-

-

-

০১

১৮

বেসরকারি মাদ্রাসা

১৭৫

৬৫

৫৩

৫৪

৩৪৭

১৯

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

১,০৬৬

৮৫৬

৭৩২

৬৯২

৩,৩৪৬

২০

বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

২৯৫

৫৭৬

২৯৪

২৮০

১৪৪৫

২১

ইবতেদায়ী মাদ্রাসা

৫৩

৫০

২২

৫২

১৭৭

মোট

১৯৭

১,৭৪১

১,২৫০

১২৮০

৬২৪২

অন্যান্য তথ্যাদি

1.   প্রধান নদ-নদী    :

             (ক) সুরমা, কুশিয়ারা, সারি, পিয়াইন ( সিলেট অঞ্চল)

             (খ) কালনী, যাদুকাটা, বাউলাই, কংস (সুনামগঞ্জ অঞ্চল)

             (গ) মনু, ধলাই (মৌলভীবাজার অঞ্চল)

             (ঘ) খোয়াই, সুতাং, রত্না (হবিগঞ্জ অঞ্চল)।

2.     উল্লেখযোগ্য স্থল বন্দর:  ভোলাগঞ্জ, তামাবিল, শেওলা, সুতারকান্দি, জকিগঞ্জ ও চাতলা।

3.    উল্লেখযোগ্য  হাওর:

(ক) হাকালুকি (কুলাউড়া-বড়লেখা, মৌলভীবাজার, গোলাপগঞ্জ-ফেঞ্চুগঞ্জ, সিলেট)

(খ) হাইল হাওর (শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার)

(গ) টাংগুয়ার হাওর (তাহিরপুর-ধর্মপাশা, সুনামগঞ্জ)

(ঘ) শনির হাওর (তাহিরপুর, সুনামগঞ্জ)

(ঙ) দেখার হাওর (দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, সদর, সুনামগঞ্জ)

(চ) ঘুঙ্গিয়াজুড়ি, মকার হাওর (হবিগঞ্জ সদর, বাহুবল, লাখাই, নবীগঞ্জ ও বানিয়াচং, হবিগঞ্জ)।

 ৪. শিল্পকারখানা

সার কারখানা

১টি (ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানা)

সিমেন্ট ফ্যাক্টরী

২টি - ছাতক সিমেন্ট ফ্যাক্টরী, লাফার্জ-সুরমা সিমেন্ট ফ্যাক্টরী

পেপার মিল

১টি, (ছাতক পেপার মিল)

টেক্সটাইল মিল

১টি

বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র

৫টি

বিসিক শিল্পনগরী

০৫ টি

৫. গ্যাস ফিল্ড    :

ফিল্ডের নাম

রিজার্ভ  (বিসিএফ)

কূপ সংখ্যা

দৈনিক উৎপাদন (বিসিএফ)

ক. উৎপাদনশীল

১। হবিগঞ্জ

৯৫৩.২১০

১০

০.২৮৯৮

২। কৈলাশটিলা

২২৫৪.৮৫৩

০৪

০.০৬১২

৩। রশিদপুর

১০৫৯.৫১৯

০৭

০.১০২১

৪। সিলেট

৯৭.০৫৯

০১

০.০০৫৫

৫। জালালাবাদ

৭১৭.৩৭৫

০৪

০.১৭৪১

৬। বিয়ানীবাজার

১৫৬.৪২১

০২

০.০২৫৯

৭। বিবিয়ানা

২০৪১

 

 

৮। ফেঞ্চুগঞ্জ

২১০

 

 

৯। মৌলভীবাজার

৪০০

 

 

খ. উৎপাদন বন্ধ

১। ছাতক  (টেংরাটিলা)

২৪১.৫

 

 

সর্বমোট

৮১৩০.৯৩৭

 

 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযু্ক্তি

1.      তথ্য বাতায়ন: মোট সংখ্যা: ৩৭৯ (তিনশত ঊনআশি) টি

(ক) বিভাগীয তথ্য বাতায়ন       : ০১ (এক) টি

(খ) জেলা তথ্য বাতায়ন           : ০৪ (চার) টি

(গ) উপজেলা তথ্য বাতায়ন       : ৩৯ (ঊনচল্লিশ) টি

(ঘ) ইউনিয়ন তথ্য বাতায়ন        : ৩৩৬ (তিনশত ছত্রিশ) টি           

 

মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম সংক্রান্ত সিলেট বিভাগের তথ্য

(সর্বশেষ আপডেট ফেব্রুয়ারি ২০১৬)

ক্রমিক নং

জেলার নাম

প্রাথমিক বিদ্যালয়

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক

আছে

নাই

আছে

নাই

   ০১

সিলেট

৭০

৯৭৫

৩৯৫

-

  ০২

সুনামগঞ্জ

৩০

১৪০৯

১৭৭

১১২

  ০৩

হবিগঞ্জ

২৪

১০০৬

২০৫

১০২

  ০৪

মৌলভীবাজার

২১

১০০৬

২৪৭

৪৩

                                           মোট=

১৪৫

৪৩৯৬

১০২৪

২৫৭

পর্যটন

সিলেট বিভাগের দর্শণীয় স্থানসমূহ

1.      সিলেট জেলা:   

          (ক) হযরত শাহজালাল (রঃ) এবং হযরত শাহপরাণ (রঃ) এর মাজার, সিলেট।

          (খ) জাফলং, শ্রীপুর, তামাবিল, ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারী, লাক্কাতুরা চা বাগান, বিছনাকান্দি, খাসিয়াপুঞ্জি,

          (গ) জৈন্তার রাজবাড়ী, জৈন্তাপুর, সিলেট।

          (ঘ) শ্রী চৈতন্যের জন্মস্থান, গোলাপগঞ্জ, সিলেট।

         (ঙ) রাতারগুল, গোয়াইনঘাট, সিলেট।

2.     সুনামগঞ্জ

         (ক) টেকেরঘাট, সুনামগঞ্জ।

         (খ) টাঙ্গুয়ার হাওর, সুনামগঞ্জ।

         (গ) হাছন রাজার বাড়ী, সুনামগঞ্জ।

         (ঘ) দেখার হাওর

3.    মৌলভীবাজার

          (ক) মাধবকুন্ড জলপ্রপাত, বড়লেখা, মৌলভীবাজার।

          (খ) হামহাম জলপ্রপাত, কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার।

          (গ) বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিউট, শ্রীমঙ্গল টি রিসোর্ট, মৌলভীবাজার।

          (ঘ) লাউয়াছড়া রিজার্ভ ফরেস্ট, কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার।

4.      হবিগঞ্জ

        (ক) সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান, চুনারুঘাট, হবিগঞ্জ।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি

          (ক) বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মেমোরিয়াল টাওয়ার, মৌলভীবাজার।

          (খ) জেনারেল এম এ জি ওসমানীর কবরস্থান, সিলেট।

          (গ) মেজর জেনারেল এম এ রব-এর কবরস্থান, হবিগঞ্জ।

          (ঘ)  সুনামগঞ্জ জেলার ডলুরা নামক স্থান।

          (ঙ)  তেলিয়াপাড়া চা বাগান সংলগ্ন মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ, মাধবপুর, হবিগঞ্জ।

অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহ:

           (ক) মনিপুরী ললিতকলা একাডেমী, মৌলভীবাজার।

          (খ) বাংলাদেশ চা গবেষণা কেন্দ্র, মৌলভীবাজার।

          (গ) ওসমানী জাদুঘর, সিলেট।

          (ঘ) বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট, খাদিমনগর, সিলেট।

          (ঙ) কৃষি প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট, সিলেট।

          (চ) স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি এন্ড ট্যাকটিক্স, সিলেট।

          (ছ) এম,এ,জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর, সিলেট।

ছবি


সংযুক্তি